১১’ বিশ্বকাপে আয়োজকের মর্যাদা পেল বাংলাদেশ

0
338

পিভিউ স্পোর্ট স  ডেস্ক :  ভূমিকাপর্ব: প্রতিটি বিশ্বকাপ জন্ম দেয় নতুন তর্ক-বিতর্কের। ২০১১ বিশ্বকাপও ব্যতিক্রম নয়। তবে বিশ্বকাপের ১০ম আসর স্মরণীয় হয়ে থাকবে টাইগারদের জন্য। প্রথমবারের মতো ভারত-শ্রীলঙ্কার সঙ্গে জোট বেঁধে বিশ্বকাপ আয়োজন করে বাংলাদশ।

আয়োজক: ১৯৮৭ সালের পর পুনরায় বিশ্বকাপ আয়োজিত হয় এশিয়ায়। তবে এবার ভারত ও শ্রীলঙ্কা সহ-আয়োজক হিসেবে পাকিস্তানের বদলে বেছে নেয় বাংলাদেশকে। মূলত নিরাপত্তার কারণে এবং রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে সহ-আয়োজক হতে পারেনি পাকিস্তান। ২০১১ বিশ্বকাপের অফিসিয়াল মাস্কটের নাম রাখা হয় ‘স্টাম্পি।’

অংশগ্রহণকারী দেশ: গত আসরে ১৬ দল হলেও ২০১১ বিশ্বকাপে তা কমিয়ে আনা হয় ১৪-তে। আইসিসির পূর্ণাঙ্গ দশ সদস্যের পাশাপাশি ছিল চার সহযোগী সদস্য।

ভেন্যু: ১২ ভেন্যুর মধ্যে ভারত সাতটি ভেন্যুতে ম্যাচ আয়োজন করে। শ্রীলঙ্কা আয়োজন করে তিনটি ভেন্যুতে। বাংলাদেশ তাদের প্রথম বিশ্বকাপ ম্যাচ আয়োজন করে জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম (চট্টগ্রাম) এবং শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে(ঢাকা)। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও ম্যাচ হয বাংলাদেশে।

গ্রুপ পর্ব: অংশগ্রহণকারী ১৪ দেশকে ভাগ করা হয় দুই গ্রুপে। ‘এ’ গ্রুপে ছিল স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, কানাডা ও কেনিয়া। স্বাগতিক ভারত, বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ড।

’১১ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ: স্বাগতিক হলেও কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বে টাইগাররা তিন ম্যাচে জয় পায়। কিন্তু সমান ম্যাচ জিতে নেট রান রেটে এগিয়ে থাকায় শেষ আটে উঠে উইন্ডিজরা। নেদারল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেলেও বাকি তিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে কোনো প্রতিরোধ করতে পারেনি টাইগাররা।

মূল লড়াই শুরু: ১৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকার শেরে-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুই স্বাগতিক বাংলাদেশ বনাম ভারতের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠে বিশ্বকাপের ১০ম অাসরের। উদ্বোধনী ম্যাচে টাইগারদের ওপর প্রতিশোধ নেয় ভারত।

শিরোপা উৎসব: শেষ আটের লড়াই শেষে সেমিফাইনালে উঠে শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, ভারত ও নিউজিল্যান্ড। বহুল প্রত্যাশিত ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে সৃষ্টি হয় নানা আতঙ্ক-বিতর্কের। অবশ্য শেষ পযর্ন্ত জয় হয় ধোনির দলের। অন্য সেমিতে কিউইদের স্বপ্ন ভেঙে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠে লঙ্কানরা। ০২ এপ্রিল, মুম্বাইয়ের ফাইনালে লঙ্কানদের হারিয়ে দীর্ঘ ২৮ বছরের খরা গুছায় ভারত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here