সড়কবাতি জ্বালিয়ে ৮৪৭ জন পেলেন ২১ লাখ টাকা

0
370

পিভিউ ডেস্ক :    নগরের সড়কবাতির সুইচ অন-অফের কাজে নিয়োজিত ইমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের বার্ষিক সম্মানী ভাতা বিতরণ করেছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

নগরের ৪১ ওয়ার্ডে সড়কবাতি আছে ৫১ হাজার ৫৭৩টি। প্রতিদিন ১ হাজার ৫৩৪ জন ১ ৫৩৪টি সুইচিং পয়েন্ট থেকে সন্ধ্যায় বাতির সুইচ অন এবং ভোর বেলা ফজরের নামাজের পর বাতির সুইচ অফ করেন।

এসব সুইচিং পয়েন্টের কাছের মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, মন্দির ও গির্জার পুরোহিতদের মাধ্যমে একটি সুপরিকল্পিত উপায়ে নগরীর সব সড়কবাতির সুইচ অন অফ করা হয়। এর ফলে জনবল ও বিদ্যুৎ সাশ্রয় বাবদ চসিকের বছরে ২ কোটি ২৭ লাখ ৮৪ হাজার ৬৭৫ টাকা সাশ্রয় হচ্ছে।

আগে প্রতিজনকে ১ হাজার ২০০ টাকা করে ভাতা দেওয়া হত। সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন দায়িত্ব নেওয়ার পর জনপ্রতি ৩০০ টাকা বাড়িয়ে ১৫০০ টাকা সম্মানী ভাতা নির্ধারণ করেন।

সম্মানীভাতা বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চসিকের সচিব মোহাম্মদ আবু শাহেদ চৌধুরী।

চসিক কাউন্সিলর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, শৈবাল দাশ সুমন, চসিক প্রধান প্রকৌশলী  লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমদ শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

মেয়র সুইচ অন-অফকারীদের উদ্দেশে বলেন- ধর্ম পালনের পাশাপাশি আপনারা এই মহৎ কাজ করে নগর সেবা ও জাতীয় দায়িত্ব পালন করছেন। আমি মনে করি এই মহান কাজটি এবাদতের অংশ। আপনাদের এই দায়িত্ব পালনের ফলে জাতীয় বিদ্যুৎ অপচয় রোধ হচ্ছে এবং করপোরেশনের জনবল ব্যয় সাশ্রয় হচ্ছে। জাতীয় সম্পদ বিদ্যুৎ অপচয় রোধ করা সবার নৈতিক দায়িত্ব। তাই যথাসময়ে বাতির সুইচ অন-অফ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের আরও দায়িত্বশীল হতে হবে।

তিনি বলেন, মাঝেমধ্যে দিনের বেলায় দেরিতে সুইচ বন্ধ করার অভিযোগ পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে একে অপরকে সহযোগিতা করার জন্য তিনি আহ্বান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here